1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : Ashraful Abedin : Ashraful Abedin
  3. [email protected] : masud :
মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারী ২০২৩, ১০:২০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
আন্তর্জাতিক ক্বিরাত সম্মেলন ঈশ্বরদীতে পৌর কাউন্সিলর কামাল হোসেনের মুক্তির দাবিতে সভা অনুষ্ঠিত ঈশ্বরদীর বাঘইল স্কুল এন্ড কলেজে পুণঃমিলনী সভা অনুষ্ঠিত বাঘইল স্কুল এন্ড কলেজের ৭৫ তম বছর পূর্তি অনুষ্ঠান বাস্তবায়ন কমিটির সভা অনুষ্ঠিত ঈশ্বরদীতে নিষিদ্ধ ট্রাপেন্ডাডল ট্যাবলেটসহ এক নেতা গ্রেফতার প্রবাস জীবন শেষে হতাশাগ্রস্ত রায়হান মাছ ও ফলনশীল গাছের চাষ করে কোটিপতি ঈশ্বরদী থেকে সাত ভাই একসাথে পবিত্র ওমরাহ হজ্ব পালনের উদ্দেশ্যে সৌদি যাত্রা ঈশ্বরদী আইকে রোডে অত্যাধুনিক “গ্রীণসীটি সি ফুড স্টেশন”এর উদ্বোধন ঈশ্বরদীতে নিঁখোজের ছয়দিন পর বিএনপি নেতার পুকুর থেকে সুমনের লাশ উদ্ধার মেজর ইমরুল আলম (অব:) এর পক্ষ থেকে শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ

ডিবির অভিযানে নকল প্রসাধনী জব্দ ও মালিকের জেল জরিমানা

  • প্রকাশিত : বৃহস্পতিবার, ৯ জুন, ২০২২
  • ১৭৫ বার দেখা হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার।। সৌদি আরব, আরব আমিরাত, তুরস্ক, পাকিস্তান, থাইল্যান্ড সহ বিভিন্ন দেশের নামি দামী কোম্পানির নামের প্রসাধনী তৈরি করতো পাবনার লিয়ন কসমেটিক্স নামের একটি প্রতিষ্ঠান। পাবনার শহরের অবৈধ এই প্রতিষ্ঠানটিতে অভিযান চালিয়েছে পাবনা জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ।

বুধবার (৮ জুন) দুপুরে পাবনা শহরের মেরিল বাইপাস রোডের গোলাপবাগ এলাকায় এই অভিযান চালায় জেলা গোয়েন্দা পুলিশ-ডিবি। অভিযানে প্রতিষ্ঠানটি থেকে বিপুল পরিমাণ নকল বিদেশি প্রসাধনী জব্দ করা হয়। একই সঙ্গে মালিককে জেল-জরিমানা করে গ্রেফতার দেখিয়ে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

গ্রেফতারকৃত মোঃ আসাদুজ্জামান মাসুম (৫৬) ঈশ্বরদীর কালিকাপুর মৃত ময়েজ উদ্দিন প্রামাণিকের ছেলে। তিনি দেশের সুনামধন্য প্রতিষ্ঠান স্কয়ার গ্রুপের একজন কর্মচারী ছিলেন। চাকরি থেকে অবসর নিয়ে ২০১৮ সাল থেকে তিনি নিজ বাড়িতে গোপনে এই নকল প্রসাধনী তৈরির কারখানা স্থাপন করেন। এ ধরনের নকল কোম্পানী পাবনায় আরো আছে বলে অনেকে জানান।

ডিবির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আতাউর রহমান খোন্দকার জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযানে চালানো হয়। এ সময় বিভিন্ন ব্রান্ডের বিউটি ক্রিম, বডি লোশন, ওয়েল, হেয়ার টনিক, পারফিউম ও বডি স্প্রে সহ নানা প্রসাধনী জব্ধ করা হয়। এই সব প্রসাধনী তৈরিতে ব্যবহার করা হতো ক্ষতিকারক কেমিক্যাল ও কাঁচামাল।

এ সময় ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানটির মালিক মো. আসাদুজ্জামান মাসুমকে তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও এক মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়। সাজাপ্রাপ্ত আসাদুজ্জামানকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। এ সময় মানবদেহের জন্য ক্ষতিকারক নকল প্রসাধনী ধ্বংস করা হয়।

অভিযানে অংশ গ্রহণ করেন পাবনা জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আবুল হাসনাত, ডিবির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আতাউর রহমান খন্দকার, ডিবি পুলিশ পরিদর্শক জিন্নাত সরকার, উপ-পরিদর্শক মনোয়ারুল ইসলামসহ জেলা গোয়েন্দা পুলিশের সদস্যরা।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ

সাম্প্রতিক সংবাদ

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায় সিসা হোস্ট