1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : Ashraful Abedin : Ashraful Abedin
  3. [email protected] : masud :
রবিবার, ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০১:২৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
পাবনা ক্যাডেট কলেজের পঞ্চম ব্যাচের রি-ইউনিয়ন ঈশ্বরদীর গ্রীণসীটি সিফুড স্টেশনের কফি আড্ডায় অংশ গ্রহণকারীদের মন্তব্য যৌতুকের দাবিতে অমানবিক নির্যাতনের অভিযোগ,প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা ইসলামী লাইফ টাইম ফাউন্ডেশনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ট্রেনে অভিযান পরিচালনা করায় রেলওয়ে পাকশী বিভাগের কর্মকর্তারা প্রশংসিত ঈশ্বরদীতে বিশাল গাড়ি মেলার উদ্বোধন করলেন নিটল নিলয় গ্রুপের চেয়ারম্যান আব্দুল মাতলুব আহমাদ আন্তর্জাতিক ক্বিরাত সম্মেলন ঈশ্বরদীতে পৌর কাউন্সিলর কামাল হোসেনের মুক্তির দাবিতে সভা অনুষ্ঠিত ঈশ্বরদীর বাঘইল স্কুল এন্ড কলেজে পুণঃমিলনী সভা অনুষ্ঠিত বাঘইল স্কুল এন্ড কলেজের ৭৫ তম বছর পূর্তি অনুষ্ঠান বাস্তবায়ন কমিটির সভা অনুষ্ঠিত ঈশ্বরদীতে নিষিদ্ধ ট্রাপেন্ডাডল ট্যাবলেটসহ এক নেতা গ্রেফতার

পুলিশের সহায়তায় দুধের শিশুকে ফিরে পেলো নির্যাতিতা মা

  • প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ২৩ মার্চ, ২০২১
  • ৪৩৮ বার দেখা হয়েছে
কুড়িগ্রাম সংবাদদাতা।। কুড়িগ্রাম জেলার চিলমারিতে পুলিশের সহায়তায় নির্যাতিতা মা ফিরে পেলো তার দুধের কণ্যা শিশু মিতুকে।
গত সোমবার (২২শে মার্চ) রাতে ৫ মাস বয়সী মিতুকে তার বাবার বাড়ি থেকে উদ্ধার করে তার মা নির্যাতিতা সাজেদা বেগমের (২৪) কোলে তুলে দিলো পুলিশ।
সাজেদা বেগম স্বামী, দেবর ও শ্বাশুড়ির নির্যাতনের শিকার হয়ে ঐ সময় চিলমারী উপজেলা হাসপাতালে চরম অসুস্হ অবস্হায় পড়ে ছিলেন।ঘটনার দিন সন্ধ্যার দিকে ৯৯৯ এ ফোন দিলে স্হানীয় থানা পুলিশ শিশুটির বাবার বাড়ি থেকে দুধের শিশু মিতু কে উদ্ধার করে।
সাজেদা বেগমের স্বামী রফিকুল ইসলামের বাড়ি চিলমারী উপজেলার রমনা ইউনিয়নের রাজারভিটা গ্রামে। প্রায় ১০ বৎসর আগে তাদের বিয়ে হয়। তাদের ৫ মাস বয়সী মেয়ে মিতু ছাড়াও ৭ বৎসর বয়সী একটি মেয়ে ও ৪ বৎসর বয়সী একটি ছেলেও রয়েছে।
স্বামী রফিকুল ইসলাম নরসিংদী গার্মেন্টেসে চাকুরী করে। প্রায় তাদের মধ্যে পারিবারিক বিষয়ে কলহ বেধেই থাকতো। ঘটনার দিন ২১ শে মার্চ বিকেলে ঝগড়ার এক পর্যায়ে স্বামী, দেবর ও শ্বাশুড়ি মিলে তাকে বেদম প্রহার করে। এতে সাজেদা বেগম চরম অসুস্হ হয়ে পড়লে সোমবার (২২ শে মার্চ) দুপুরে চিলমারী হাসপাতালে ভর্তি হন তিনি। কিন্তু পাষন্ড স্বামী দুই শিশু সহ দুধের শিশুটিকেও কেড়ে রাখে।
পরে হাসপাতালের অন্যান্যদের সহায়তায় ৯৯৯ এ ফোন করেন। এরপর স্হানীয় থানার এস আই আতাউর রহমান ও এস আই জিল্লুর রহমানের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্হলে যান এবং স্হানীয় জনপ্রতিনিধিদের সহযোগীতায় শিশুটিকে উদ্ধার করে মায়ের কোলে ফিরিয়ে দেন।
এলাকা বাসীর সুত্রে জানা যায়, স্ত্রী সাজেতা বেগম যখন হাসপাতালে পড়ে যন্ত্রনায় কাতরাচ্ছে তখন পাষন্ড স্বামী রফিকুল ইসলাম সন্তানদের নিয়ে ঢাকা যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিলো।
 এ ব্যাপারে চিলমারী মডেল থানার ওসি আনোয়ারুল ইসলাম জানান, ঘটনা সত্য সব কিছু পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে সময় মতো পরিস্হিতি অনুযায়ী ব্যাবস্হা গ্রহন করা হবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ

সাম্প্রতিক সংবাদ

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায় সিসা হোস্ট