1. admin@sadhinotarkontho.com : admin :
  2. akter.panna.1@gmail.com : akter.panna.1 :
  3. mdashrafishurdi@gmail.com : Ashraful Abedin : Ashraful Abedin
  4. masud@sadhinotarkontho.com : masud :
বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ০২:১৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
হবিগঞ্জ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের কর্মবিরতি পালন স্পীকারের সাথে বাংলাদেশে নিযুক্ত কোরিয়ার রাষ্ট্রদূতের সৌজন্য সাক্ষাৎ ঈশ্বরদীর দাশুড়িয়া প্রি-ক্যাডেট স্কুলে মুক্তিযুদ্ধ কর্ণারের উদ্বোধন ঈশ্বরদীতে উপজেলা চেয়ারম্যান পদের দুই প্রার্থীর নির্বাচন জমে উঠেছে সন্ত্রাস মুক্ত স্মার্ট ও ডিজিটাল ঈশ্বরদী গড়ার লক্ষ্যে উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থীর পথসভা অনুষ্ঠিত সাপ্তাহিক ঈশ্বরদী’র ২২ বর্ষপূতি: উৎসব শোভাযাত্রা সূধী সমাবেশ সঙ্গীত সন্ধ্যা ঈশ্বরদী পৌর এলাকায় আনারস প্রতিকের প্রার্থীর পক্ষে নির্বাচনী জনসভা অনুষ্ঠিত আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলার চেয়ারম্যান প্রার্থী রিয়াজের প্রার্থিতা বাতিল ব্রিটিশ প্রকৌশলী রবার্ট উইলিয়াম গেলসের সুরম্য দ্বিতল বিশিষ্ট বাংলো এবং ব্রিটিশ প্রকৌশলীর স্মৃতিস্থান এখনও দর্শনার্থীদের আকৃষ্ট করে ঈশ্বরদীতে ২৯৫ বোতল ফেনসিডিল ও নগদ টাকাসহ রেল নিরাপত্তা বাহিনীর সিপাহী আটক

পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলে চলছে ‘বৈসাবি’ উৎসব

  • প্রকাশিত : শুক্রবার, ১২ এপ্রিল, ২০২৪
  • ৪৩ বার দেখা হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক : পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলে চলছে ‘বৈসাবি’ উৎসব। পুরনো বছরের গ্লানি মুছে নতুন বছরকে রাঙাতে পাহাড়ে পাহাড়ে নানা আয়োজন করা হয়েছে।

খাগড়াছড়ির চেঙ্গী নদী ও রাঙ্গামাটিতে ফয়েজ লেক এবং বান্দরবানে সাঙ্গু নদীতে ফুল ভাসিয়ে শুরু হয় ‘ফুল বিজু’ উৎসব।ভোরে শতশত শিশু-কিশোর, তরুণ-তরুণী, বিভিন্ন বয়সের নারী-পুরুষ সূর্যোদয়ের আগেই  নদীর তীরে সমবেত হন। সারিবদ্ধ হয়ে নদীতে নানা রঙের ফুল উৎসর্গ করেন। ফুলে ফুলে বর্ণিল হয়ে উঠে লেক ও নদী। এছাড়া শহর, শহরতলীর বিভিন্ন খাল ও প্রাকৃতিক ছড়াও ফুলে ফুলে ভরে যায়।

এদিকে, ত্রিপুরা ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী নদীতে ফুল পুজা করে বৈসু উৎসব শুরু করেন। নদীর তীরে, ঐতিহ্যবাহী পোশাকে সেজে পাহাড়ী তরুন-তরুনীরা সবার মঙ্গল কামনায় কলাপাতায় করে ভক্তি শ্রদ্ধায় গঙ্গাদেবীর পুঁজা করেন।

একদিকে বাংলা বর্ষবরণ অন্যদিকে পার্বত্য চট্টগ্রামে বসবাসরত ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠীর প্রধান ধর্মীয় উৎসব বৈসাবী এ দুটো মিলে পাহাড়ে বাঙ্গালী ও পাহাড়ীদের মিলন মেলায় পরিনত হয়। উৎসবের আমেজ নিয়ে সারা বছর পাহাড়ে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি ধরে রাখার আহবান সুধীজনদের।

বাংলা বর্ষবরণ ও বৈসাবীর পক্ষকালব্যাপী পাহাড়ের এ দীর্ঘ আনন্দ আয়োজন সফল করতে রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নেয়া হয়েছে ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

উৎসবের শেষ দিনে ১৬ এপ্রিল মারমা সম্প্রদায় উদযাপন করে ঐতিহ্যবাহী পানি খেলা উৎসব। সপ্তাহ জুরে চলে মামো পল্লী গুলোতে । এর মধ্যে দিয়ে শেষ হবে পাহাড়ের এই বৈসাবী উৎসব।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ

সাম্প্রতিক সংবাদ

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায় সিসা হোস্ট