1. admin@sadhinotarkontho.com : admin :
  2. akter.panna.1@gmail.com : akter.panna.1 :
  3. mdashrafishurdi@gmail.com : Ashraful Abedin : Ashraful Abedin
  4. masud@sadhinotarkontho.com : masud :
বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৪:৫৬ অপরাহ্ন

ওয়েল মিল নির্মাণে বাধা,চাঁদাদাবির প্রতিবাদে ও শাস্তির দাবিতে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত

  • প্রকাশিত : রবিবার, ২৪ জুলাই, ২০২২
  • ৪৫৪ বার দেখা হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার,ঈশ্বরদী।। ঈশ্বরদীর বড়ইচরায় আর.বি.রাইস ব্রাণ ওয়েল মিল নির্মাণে ষড়যন্ত্র, বাধা, চাঁদাদাবি ও শাস্তির দাবিতে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। রবিবার সকালে নির্মানাধীন আর.বি.রাইস ব্রাণ ওয়েল মিল চত্বরে এলাকাবাসীর একাংশকে সাথে নিয়ে মিল কর্তৃপক্ষ এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য দেন, আর.বি.রাইস ব্রাণ ওয়েল মিলের পরিচালক মোঃ মধু বিশ্বাস। এছাড়াও এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে আওয়ামীলীগ নেতা ইদ্রিস
আলী মন্ডল, বীর মুক্তিযোদ্ধা নূর আলী ও শাহিনুজ্জামান, ইউপি চেয়ারম্যান বাবলু মালিথা বক্তব্য দেন।
মিলের পরিচালক মোহাম্মদ মধু বিশ্বাস তার লিখিত বক্তব্যে অভিযোগ করে বলেন, আমি সংশ্লিষ্ট প্রশাসন ও পরিবেশ অধিদপ্তরের নিয়ম-নীতি মেনে মিলের র্নিমাণ কাজ শুরু করেছি । কিন্তু এলাকার কিছু অসাধু ব্যক্তি স্থানীয এমপি নুরুজ্জামান বিশ্বাসসহ কয়েকজন
জনপ্রতিনিধির নিকট ও পরিবেশ অধিদপ্তরে অভিযোগ দিয়ে মিলের নির্মাণ কাজ বন্ধের দাবি জানান। অভিযোগ পেয়ে এমপি নুরুজ্জামান বিশ্বাসসহ স্তানীয জনপ্রতিনিধিরা তিনজন বীর মুক্তিযোদ্ধা ও দু’জন রাজনৈতিক নেতার সমন্ময়ে পাঁচ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠণ করে দেন। তদন্ত কমিটির সদস্যরা সরেজমিনে তদন্ত শেষে শর্ত সাপেক্ষে মিল স্থাপনে সম্মতি প্রদান করেন। এরপর মিলের নির্মাণ কাজ প্রায় পঁঞ্চাশভাগ শেষ করা হয়। এ অবস্থায় ষড়যন্ত্রকারীরা আবারও মিল বন্ধের দাবিতে কিছু ব্যক্তিকে
নিয়ে মানব বন্ধন করে মিল ভেঙ্গে দেওয়া ও আমাকে (মধু বিশ্বাসকে) মারপিট করার হুমকি দেন। মধু বিশ্বাস আরও অভিযোগ করে বলেন, কিছু দুস্কৃতিকারী ঈদুল আজহার আগে আমার নিকট পাঁচ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। একই সাথে তারা হুমকি দিয়ে বলে, চাঁদা না দিলে ঈদের পর মিলের নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেওয়া হবে। ষড়যন্ত্রকারীরা মিথ্যা অপপ্রচার চালাচ্ছে আমাকে ও নির্মানাধীণ মিলকে নিয়ে। তিনি বলেন, উন্নত বিশ্বের অত্যাধুনিক জিরো লিকুইড ওয়াটার পদ্ধতি মিলটিতে ব্যবহার করা হবে। এতে পানির ব্যবহার খুব কম হবে। ব্যবহৃত পানি পরিশোধন করে পুণরায় ব্যবহার করা যাবে। এখানে বজ্র বলে কিছু থাকবেনা। কালো ধোঁয়া বা বাতাসে ছাই ওড়ার কোন
সুযোগ নেই। কালো ধোঁয়া নিরসনের জন্য আধুনিক পদ্ধতি
ব্যবহার করে সম্পূর্ণরুপে দূষণ মুক্ত করে অন্যত্রে সরিয়ে নেওয়া হবে। এতে পরিবেশের বিন্দুমাত্র ক্ষতির সম্ভাবনা নেই। তিনি ষড়যন্ত্রকারী ও চাঁদা দাবিকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলেও সাংবাদিকদের জানান।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায় সিসা হোস্ট