1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : Ashraful Abedin : Ashraful Abedin
  3. [email protected] : masud :
বৃহস্পতিবার, ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৮:৩৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
তুরস্কে আঘাত হেনেছে বড় ধরনের ভূমিকম্প পিতা মাতার কবর জিয়ারত ও শীত বস্ত্র উপহার দিলেন মেজর ইমরুল (অবঃ) পাবনা ক্যাডেট কলেজের পঞ্চম ব্যাচের রি-ইউনিয়ন ঈশ্বরদীর গ্রীণসীটি সিফুড স্টেশনের কফি আড্ডায় অংশ গ্রহণকারীদের মন্তব্য যৌতুকের দাবিতে অমানবিক নির্যাতনের অভিযোগ,প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা ইসলামী লাইফ টাইম ফাউন্ডেশনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ট্রেনে অভিযান পরিচালনা করায় রেলওয়ে পাকশী বিভাগের কর্মকর্তারা প্রশংসিত ঈশ্বরদীতে বিশাল গাড়ি মেলার উদ্বোধন করলেন নিটল নিলয় গ্রুপের চেয়ারম্যান আব্দুল মাতলুব আহমাদ আন্তর্জাতিক ক্বিরাত সম্মেলন ঈশ্বরদীতে পৌর কাউন্সিলর কামাল হোসেনের মুক্তির দাবিতে সভা অনুষ্ঠিত ঈশ্বরদীর বাঘইল স্কুল এন্ড কলেজে পুণঃমিলনী সভা অনুষ্ঠিত

এক কিশোরীকে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে ধর্ষণে ছয় মাসের অন্তঃসত্ত্বা

  • প্রকাশিত : শুক্রবার, ২৫ জুন, ২০২১
  • ৫৪১ বার দেখা হয়েছে

মোংলা সংবাদদাতা।। মোংলায় বিয়ের প্রলোভন দিয়ে ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা হওয়া এক অসহায় কিশোরীরে অবশেষে বিয়ে পড়িয়ে দিলেন স্থানীয় পৌর কমিশনার ও মানবাধিকার কর্মী।

গত ৮ মাস যাবত ওই কিশোরীকে ঘরে আটকে রেখে ধর্ষণ করে আসছিল স্থানীয় একটি শিপিং কোম্পানীর ম্যানেজার হাবিবুর রহমান। কিশোরী ৬ মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পরলে এলাকাবাসীর চাপের মুখে তাকে বিয়ে করতে বাধ্য হয় লম্পট হাবিব। বৃহস্পতিবার বিকালে পৌর শহরের শ্রমকল্যান রোডস্থ্য মানবাধিকার সংস্থার অফিস কার্যলয় বিয়ে সম্পন্ন করা হয়।

প্রদ্যাক্ষদর্শী ও মানবাধিকার কর্মী সুমি লীলা জানায়, ছোট সময় মা-বাবাকে হারিয়ে অন্যের বাড়ী কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করতেছিল ১৩ বছরের কিশোরী। অভাবের তাড়নায় কোন উপায় না পেয়ে সাতক্ষিরা থেকে মোংলা পৌর শহরের ৭নং ওয়ার্ডের ছাড়াবাড়ী এলাকায় চাচা মুনছুর গাজীর বাড়ীতে আসে ওই কিশোরী। চাচী শাহিদা বেগম’র সহায়তায় একটি শিপিং অফিসে ধোয়া-মোছার কাজ নেয় অভাবী ওই নির্যাতিতা কিশোরী। অফিসে কিছু দিন কাজ করার সুবাধে কিশোরীর দিকে কুনজর পরে ৬৫ বছরের অফিস ম্যানেজার হাবিবুর রহমানের। ধর্ষক হাবিব পৌরসভার মাদ্রাসা রোডস্থ আজাহাজর মোল্লার ছেলে। বিয়ের প্রলোভন দিয়ে জোর পুর্বক দিনের পর দিন ধর্ষন করে আসছিল লম্পট হাবিব। এক পর্যায় অসহায় এ কিশোরী ৬ মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লে হাবিবকে বিয়ের কথা বললে তালবাহানা করতে থাকে লম্পট হাবিব। এ খবর চাচি শহিদা বেগম জানতে পারলে হাবিবকে দ্রুত বিয়ের কথা বললে হাবিব বিয়ে করবে না এবং এ ঘটনা মিথ্যে বলে সব কিছু অস্বিকার করে সে।

ম্যানেজার হাবিব এলাকার প্রভাবশালী হওয়ায় নির্যাতিতা ওই কিশোরীকে দুশচরিত্রা বলে এলাকা থেকে বের করে দেয়ার চেষ্টা করে হাবিব। হাবিবের চাপেমুখে বুধবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে চাচি শাহিদা বেগম কিশোরীকে ঘর থেকে বের করে দেয়। কোন উপায় না পেয়ে অসহায় নির্যাতিতা এ কিশোরী স্থানীয়দের সহায়তায় মানবাধিকার সংস্থা আইন সহায়তা কেন্দ্র (আসোক) এর উপজেলা শাখার সভাপতি সুমি লীলা খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে গিয়ে অন্তঃসত্ত্বা ওই কিশোরীকে উদ্ধার করে। এক পর্যায় বিষয়টি ধর্ষক হাবিবুর রহমানকে জানালে পুলিশ ও মানবাধিকার সংস্থার চাপের মুখে বিয়ে করতে বাধ্য হয় ম্যানেজার হাবিব।

বৃহস্পতিবার বিকাল ৫টার দিকে মানবাধিকার সংস্থা (আসোক)’র কায়লয় ২ লাখ ১০ হাজার টাকা দেনমোহরে বিয়ে সম্পন্ন হয় এবং নির্যাতনের শিকার অসহায় ওই কিশোরীর অনাগত সন্তানের পিতৃ পরিচয়ের জন্য ম্যানেজার হাবিবুর রহমান হাবিব নিজ মুখে শিকার করে বলে জানায় মানবাধিকার কর্মী সুমি লীলা।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ

সাম্প্রতিক সংবাদ

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায় সিসা হোস্ট