1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : Ashraful Abedin : Ashraful Abedin
  3. [email protected] : masud :
রবিবার, ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১২:৫৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
পাবনা ক্যাডেট কলেজের পঞ্চম ব্যাচের রি-ইউনিয়ন ঈশ্বরদীর গ্রীণসীটি সিফুড স্টেশনের কফি আড্ডায় অংশ গ্রহণকারীদের মন্তব্য যৌতুকের দাবিতে অমানবিক নির্যাতনের অভিযোগ,প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা ইসলামী লাইফ টাইম ফাউন্ডেশনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ট্রেনে অভিযান পরিচালনা করায় রেলওয়ে পাকশী বিভাগের কর্মকর্তারা প্রশংসিত ঈশ্বরদীতে বিশাল গাড়ি মেলার উদ্বোধন করলেন নিটল নিলয় গ্রুপের চেয়ারম্যান আব্দুল মাতলুব আহমাদ আন্তর্জাতিক ক্বিরাত সম্মেলন ঈশ্বরদীতে পৌর কাউন্সিলর কামাল হোসেনের মুক্তির দাবিতে সভা অনুষ্ঠিত ঈশ্বরদীর বাঘইল স্কুল এন্ড কলেজে পুণঃমিলনী সভা অনুষ্ঠিত বাঘইল স্কুল এন্ড কলেজের ৭৫ তম বছর পূর্তি অনুষ্ঠান বাস্তবায়ন কমিটির সভা অনুষ্ঠিত ঈশ্বরদীতে নিষিদ্ধ ট্রাপেন্ডাডল ট্যাবলেটসহ এক নেতা গ্রেফতার

আন্দোলনের মুখে তিউনিসিয়ার প্রধানমন্ত্রীকে অপসারণ এবং পার্লামেন্ট স্থগিত

  • প্রকাশিত : সোমবার, ২৬ জুলাই, ২০২১
  • ৫৫০ বার দেখা হয়েছে

অনলাইন ডেক্স।। করোনা মহামারি নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থতা এবং অর্থনৈতিক পরিস্থিতি সামাল দিতে না পারায় পার্লামেন্ট স্থগিত করার পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী হিচাম মেচিচিকে অপসারণ করেছেন তিউনিসিয়ার প্রেসিডেন্ট কাইস সাইয়েদ।

বেশ কয়েকটি শহরে সহিংস বিক্ষোভের পর স্থানীয় সময় রোববার (২৫ মে) নিজ বাসভবনে এক জরুরি বৈঠক শেষে প্রেসিডেন্ট এই ঘোষণা দেন।

সোমবার (২৬ জুলাই) তিউনিসিয়ার রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমের বরাত দিয়ে আলজাজিরা এক প্রতিবেদনে জানায়,

নতুন প্রধানমন্ত্রীর মাধ্যমে নির্বাহী ক্ষমতা প্রয়োগ করার উদ্যোগ নিয়েছেন প্রেসিডেন্ট কাইস সাইয়েদ,

যা ২০১৪ সালের পর প্রেসিডেন্ট এবং পার্লামেন্টের মধ্যে সবচেয়ে চ্যালেঞ্জিং সাংবিধানিক সংকট।

বিবৃতিতে তিনি বলেন, আমার এই ঘোষণায় কেউ যদি অস্ত্র হাতে তুলে নেওয়ার চিন্তা করে,

আমি তাদের সতর্ক করছি যে, কেউ যদি গুলি চালায়, তবে সশস্ত্র বাহিনীও গুলির মাধ্যমেই তার জবাব দেবে।

তিনি দাবি করেন, তার কাজ সংবিধানের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ এবং তিনি সংসদ সদস্যদের দায়মুক্তি স্থগিত করেছেন।

এর আগে, রোববার তিউনিসিয়ার বিভিন্ন শহরে হাজার হাজার মানুষের বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়।

বিক্ষোভে অংশ নিয়ে তারা করোনা মহামারি নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থতা এবং দেশ ও জনগণের ভঙ্গুর অর্থনৈতিক অবস্থার জন্য সরকারকে দায়ী করেন। এ সময় তারা সরকারে পদত্যাগ চেয়ে শ্লোগান দিতে থাকেন।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, বেশ কয়েকটি বড় শহরে ক্ষমতাসীন দল এন্নাহাদার অফিসে ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগ করে বিক্ষোভকারীরা।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে হস্তক্ষেপ করলে পুলিশকে লক্ষ্য করে পাথর ছুঁড়ে মারে তারা।

এ সময় তারা প্রধানমন্ত্রী হিচেম মিচিচির পদত্যাগ ও পার্লামেন্ট ভেঙে দেওয়ার দাবি জানায় বিক্ষোভে অংশ নেওয়া বিক্ষুব্ধ জনতা।

পরে প্রেসিডেন্ট কাইস সাইয়েদ এক জরুরি বৈঠকে পার্লামেন্ট ভেঙে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন।

প্রসঙ্গত, ২০১০ সালে সূচনা হওয়া আরব বসন্ত তিউনিসিয়াতেই শুরু হয়। তারপর থেকেই দেশটিতে রাজনৈতিক অস্থিরতা বিরাজ করছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ

সাম্প্রতিক সংবাদ

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায় সিসা হোস্ট